Monday , June 17 2024
Breaking News

কিশোরী গৃহকর্মীর আত্মহত্যা নিয়ে রহস্য

মো: সোলায়মান: রাজধানীর মিরপুরে বেলী (১৪) নামে এক কিশোরী গৃহকর্মীর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। গত রোববার (২৬ মে) দুপুর আড়াইটায় ৮ তলা বাড়ির ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন ওই গৃহকর্মী ।

ওই বাড়ির মালিক পরিবহন ব্যবসায়ী। তার পরিবহনের নাম সাকুরা। ওই ৮তলা বাড়িটিকে সাকুরা বিল্ডিং নামে পরিচিত।মিরপুর ১৩ নম্বর, বি-ব্লকের ২/১ বাড়িতে ঘটনাটি ঘটে। বেলী ওই পরিবহনের মালিকের মেয়ের বাসায় কাজ করতেন।

বেলী ময়মনসিংহ জেলার ফুলপুর থানার বরইকান্দি গ্রামের  বাসিন্দা। তার বাবার নাম মৃত নওয়াব আলী ও মায়ের নাম মৃত রওশন আরা।

ঘটনাস্থলে সরেজমিনে গিয়ে ওই বিল্ডিংয়ের সামনে দেখা যায় ৮ তলা ভবনটি মিরপুর ১৩ নম্বর ডেসকো অফিসের সামনে অবস্থিত। একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, ঘটনার দিন বেলীকে তারা বাড়ির ছাদে পায়চারি করতে দেখেছেন। ওই সময় তারা ডেসকো অফিসের সামনে আড্ডায় ছিলেন। এক পর্যায়ে বেলী ছাদ থেকে লাফ দিয়ে  নীচে পড়লে তারা এগিয়ে যান। ঘটনার পর আশপাশের লোকজন জড়ো হলেও বাড়ির  মালিকের লোকজন এগিয়ে আসেনি। এরপর তাকে (বেলী) মিরপুর ১০ নম্বরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গৃহকর্মী জানান, বেলী সব সময় হাশিখুশি থাকতো। বাসার নিচে দোকানে এটা সেটা কিনতে যেতো। তার বয়স মাত্র ১৪-১৫ বছর আর দেখতে সুন্দর ছিলো। সে হঠাত করে কেন আত্মহত্যা করবে। নিশ্চয়ই  বড় ধরনের কোন কাহিনী আছে।

তিনি জানান, সাকুরা পরিবহন কত মানুষকে গাড়ি চাপা দিয়ে মেরে ফেলেছে। সেই বিচার হয় না। গরিব একটি মেয়ে আত্মহত্যা করে মারা গেল, এর কি বিচার হবে?

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, বেলী যখন ছাদ থেকে লাফিয়ে বাড়ির সামনে  পড়েছিলো তখন ওই বাড়ির কেউ ঘটনাস্থলে আসেনি। তাদের মধ্যে কোন প্রতিক্রিয়া ছিলো না। দারোয়ান বাড়ির মুল গেট বন্ধ করে দেন। আর ঘটনার পরই মালিকের ছোট ছেলে বাসা থেকে বেরিয়ে যান।

তিনি বলেন, গত কয় দিন যাবত এলাকায় গুঞ্জন ছড়িয়েছে বড় ধরনের কোন ঘটনা না হলে, একটি অল্প বয়সের মেয়ে এভাবে আত্মহত্যা করতে পারে না।

ঘটনাস্থলের ১০ হাত দূরে ডেসকো ২য় গেট অবস্থিত। সে গেটে দায়িত্বরত সিকিউরিটি গার্ড মো. সবুজ বলেন, মেয়ে টি আমার সামনেই ৮ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে। এখানকার পথচারী ও এলাকাবাসী মিলে মেয়েটিকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সবচেয় অবাক করা বিষয় মেয়েটি ছাদ থেকে পরলেও শরীর থেকে কোন রক্ত বের হয়নি। সে সময় মেয়েটি কি যেন বলার চেষ্টা করে ছিল। তবে সে কাউকে কিছু বলতে পারেনি।

তিনি আরও বলেন, ওই মেয়ে (বেলী) কোন কারণ ছাড়া ছাদ থেকে লাফ দেয়নি। তার সাথে কোন-না কোন অপরাধ হয়েছে। আমার মনে হয় ওই বাড়ির কেউ মেয়েটির সাথে কিছু করেছে।

সোমবার (২৭মে) রাজধানীর কাফরুল থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেন বেলীর ফুফু আমিনা।

মামলার কপি থেকে জানা যায়, বেলি ৬ মাস আগে মিরপুর ১৩ নম্বরের ওই বাড়িতে গৃহকর্মী হিসেবে কাজ শুরু করেন। ঘটনার আগের দিন বেলি তার ফুফু আমিনার ছোট বোন তাসলিমার কাছে মোবাইলে জানায় সে ওই বাড়িতে কাজ করবে না। তাসলিমা তাকে (বেলী)  পরে জানাবে বললে সে (বেলী) অভিমান করে আত্মহত্যা করে।

মামলার বাদী আমিনার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি প্রতিবেদকের পরিচয় জানতে পরে কথা বলতে রাজি হননি।

কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুকুল আলম বলেন,ঘটনার পর আমি সেখানে গিয়েছিলাম। মেয়েটি ছাদে একাই ছিলো। অনেকে তা দেখেছেন। বিস্তারিত জানতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার সাথে কথা বলেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কাফরুল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হোসনে আফরোজ জানান, এ ঘটনায় নিহতের ফুফু একটি অপমৃত্যু মামলা করেছেন। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন পাওয়া গেলে বিস্তারিত জানা যাবে।

এছাড়াও

বাংলাদেশ গড়তে মেধাবী-সুস্থ মানুষ দরকার: মেয়র আতিক

শেষবার্তা ডেস্ক : উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *