Thursday , July 18 2024
Breaking News
ছবি :পল্লবী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবির

পল্লবী থানা ছাত্রলীগের হামলায় আহত ২

”প্রধানমন্ত্রী কালসী উড়াল সেতু উদ্বোধনের পরই পল্লবী থানা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা করে পল্লবী থানা হেফাজতে নির্যাতনে নিহত জনির ভাই রকি এবং সাবেক পল্লবী থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঢাকা মহানগর উত্তর মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের সভাপতি মিলন ঢালির ওপর ”।

নিজেস্ব প্রতিনিধি: 

গত রবিবার (১৯ ফেব্রুয়ারী)  প্রধানমন্ত্রী  শেখ হাসিনা উদ্বোধন করেন মিরপুর কালসী উড়াল সেতু। এ-সময় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগসহ অঙ্গসংগঠনের শতশত নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। বক্তৃতার সময় দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে হাততালি থামানোর অনুরোধ জানান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধ দলের সবাই মানলেও পল্লবী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবির সহ তার সহযোগীরা মানেননি। হাততালি দিয়েই যাচ্ছে হেলে-দুলে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের বিষয়ে আবিরসহ তাদের হাততালি বন্ধ করতে অনুরোধ জানান রকি ও মিলন ঢালি। এতেই ক্ষিপ্ত হয় ছাত্রলীগ নেতা আবির বাহিনী ও কাউন্সিলর গ্রুপের লোকজন। পরে প্রধানমন্ত্রী চলে যাওয়ার পরই প্রথমে রকিকে মারধর করেন আবির বাহিনী। পরে মিলন ঢালির উপর হামলা চালায় কাউন্সিলর পুত্র জয়, কালা জাকির,  আবির সহ ২০/২৫ জন। এ ঘটনায় পৃথক ভাবে পল্লবী থানায় দুটি অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগীরা।

মিলন ঢালির করা অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, কাউন্সিলর নান্নুর উসকানিতে কাউন্সিলর পুত্র জয়, কালা জাকির সহ পল্লবী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবির ও তার বাহিনীর সদস্যরা প্রধানমন্ত্রী চলে যাওয়ার পরই হামলা চালায়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী রকির লিখিত অভিযোগে আসামিরা হলো, পল্লবী থানার ছাত্রলীগের আবির ছাড়াও মেহেদী হাসান রাজ, সালমান মাতবর, মেহরাব হোসাইন হিমু, পারভেজ সরদার, পাবেল, ইমতিয়াজ আহমেদ অনিক।

অন্য দিকে, মিলন ঢালির করা অভিযোগে আসামিরা হলো, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (৫ নং ওয়ার্ড) কাউন্সিলর আব্দুর রউফ নান্নু ও পুত্র জয়, কালা জাকির, জোনায়েদ আহমেদ নাহিদ, ফরিদ আহমেদ চৌধুরী আবির, মেহেদী হাসান রাজ, সালমান মাতবর, মেহরাব হোসাইন হিমু, পারভেজ সরদার, পাবেল, ইমতিয়াজ আহমেদ অনিক,এসএম মোজাম্মেল হক দ্বয়ের বিরুদ্ধে।

মারধরের কথা স্বীকার করে পল্লবী থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবির বলেন, হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। আমি দেখে দৌড়ে এসে বড় ভাই রকিকে জড়িয়ে ধরি। আমাদের ছেলে গুলোদের সরিয়ে দেই এবং আমি তাকে সরিও বলি। এক প্রশ্নে ছাত্রলীগ নেতা বলেন, ২০ হাজার টাকা ও মোবাইল কেউই নেয়নি এটা মিথ্যা।  এ বিষয়ে ভুক্তভোগী রকি বলেন, আমাকে মারধর করে টাকা মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। ২০ তারিখে থানায় অভিযোগ করেছি, আমি এমপি সাহেবকেও জানিয়েছি। হাততালি বিষয় নিয়ে তারা আমাকে এভাবে মারধর করবে আমি বুঝতে পারেনি।

মিলন ঢালি বলেন, কাউন্সিলর নান্নু ও ছেলে জয় এবং নান্নুর ভাইদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম চাঁদাবাজি ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার কারনেই আমার উপর হামলা চালায় নান্নু বাহিনী। তিনি আরও বলেন, ৫নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন রাস্তা ঘাট দখল করে দোকানপাট বসানো, রাস্তার উপর অবৈধ ট্রাক স্ট্যান্ড, পাবলিক টয়লেটের নামে চাঁদাবাজি, খিচুড়ি পট্টি (পোড়াবস্তি) দখল করে মুরগী মার্কেট, সাংবাদিক আবাসিক এলাকার রাস্তা দখল করে অফিস নির্মাণ, শেখ কামাল স্কুলের সামনে চোরাই মোবাইল মার্কেট ইত্যাদি অনিয়মের বিরুদ্ধে কথা বলাই তাদের পালিত সন্ত্রাসীদের আমার উপর লেলিয়ে দিচ্ছে। বাউনিয়াবাধ, পলাশ নগর, মিরপুর ১১ কালসী রোড স্থানগুলো তাদের নিয়ন্ত্রণে।

মিলন ঢালি আরো বলেন, হারুন মোল্লা কালশী উড়াল সেতু উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী হাত তালি না দেওয়ার জন্য অনুরোধ করলে তারা আরও বেশি করে হাত তালি দিতে থাকে। আমি (মিলন ঢালি) তাদের নিষেধ করলেই তারা আমার উপর চড়াও হয়ে মারধর করে। পল্লবী থানার এসআই মুন্সি আল আমিনের কাছে দুটি অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অভিযোগ পেয়েছি আমাদের ওসি স্যার বিষয়টি জানে। যেহেতু এটা রাজনৈতিক ইস্যু আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠানের ঘটনা। দু’পক্ষই আওয়ামীলীগ ছাত্রলীগ নিজেরা নিজেরা, তারা আপোষ মিমাংসার দিকেই যেতে চাচ্ছে।

এছাড়াও

সরকার বিরোধীদের অর্থায়ন করেন দুর্নীতিবাজ চুন্নু

বিশেষ প্রতিনিধি: ঢাকারই তিনটি জোনে নির্বাহী প্রকৌশলী থাকা অবস্থায় ভয়াবহ দুর্নীতি করে এসেছেন গণপূর্ত অধিদপ্তরের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *