Thursday , April 25 2024
Breaking News

দেশের মানুষ খালেদা জিয়াকে তাদের মাঝে ফিরে পেতে চায় : নজরুল ইসলাম

মো: সোলায়মান: রাজধানীর গাবতলী এস এ খালেক প্রোপার্টি চত্বরের সামনে “একদফা” শেখ হাসিনাসহ সরকারের পদত্যাগ নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠা দাবী-তে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি স্থায়ী কমিটি সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র জবাই করে। তাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে বিএনপি গণতন্ত্র পূর্ণ প্রতিষ্ঠাতা করে। অতীতে তাই হয়েছে। এবারও গণতন্ত্র উদ্ধার হবে ইনশাল্লাহ।

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের কথা উল্লেখ করে এই নেতা বলেন, আজকে শুধু মাত্র সংসদ নির্বাচন নয়, পৌরসভা , সিটি কর্পোরেশন ও ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনেও কারচুপি হয়। এমনকি ছাত্র সংসদ নির্বাচনেও কাটচুপির সংবাদ পত্রিকায় ছাপা হয়। তারপরও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি ন্যায্য হয় না। শত শত আসনের জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি ন্যায্য হয়। অবশ্যই হয়। তারা (আওয়ামীলীগ) মানতে রাজি হয় না, এ কারণে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে তাদের ভরাডুবি হবে। মানুষের উপর তারা অত্যাচার নির্যাতন করেছে। আমাদের দলের হাজারের ও বেশি নেতাকর্মীকে গুম করে ফেলা হয়েছে। কয়েকশো নেতাকর্মীকে খুন করা হয়েছে। লক্ষ লক্ষ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে। তারা দেশটাকে জ্বালিয়ে দিয়েছে। দেশের সকল জাতীয়তাবাদী দল দাবি জানিয়েছে এই সরকারের অধীনে কোন নির্বাচন হতে পারে না। ‌।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, যারা আমাদের আন্দোলন সংগ্রামে আছে আপনাদেরকে ধন্যবাদ। যারা এখনো রাস্তায় নামতেছেন না, তাদের প্রতি আমার একটি অনুরোধ। ১৯৭১ সালে আমাদের যাদের যুদ্ধে যাওয়ার বয়স ছিল আমরা যুদ্ধে গিয়েছিলাম। আজকে আমরা গৌরব করে বলি আমি একজন মুক্তিযুদ্ধ। কিন্তু যারা সেদিন যায় নাই, তারা এখন আক্ষেপ করেন। এই সরকারের পতন অবশ্যই হবে। বাংলাদেশের জনগণ গণতন্ত্রের সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে চায়। এই সরকারের পতন হবেই হবে।যারা আন্দোলনে আছেন তারা গৌরব করে বলবেন, আমরা স্বৈরাচারের পতন করেছি। যারা এখনো আন্দোলনে আসেন নাই তারা দয়া করে আসেন। যারা মুক্তিযুদ্ধে যায়নি, তাদের মত আক্ষেপ করবেন। আহা এই স্বৈরাচারের পতনে থাকতে পারলাম না।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া মুক্তি পাওয়ার যোগ্য এমনিতেই। বাংলাদেশের সংবিধান ও প্রচলিত আইন বলে, একজন নারী, তিনি অনেক বয়স্ক ও বিশিষ্ট নাগরিক, তার চিকিৎসা জন্য জামিন পাওয়া বাধা হওয়ার কারণ নাই। তাকে বিনা অপরাধে সাজা দেওয়া হয়েছে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশীভূত হয়ে। প্রতিহিংসার কারণে তার চিকিৎসার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। তারা বলে বাংলাদেশে ভালো চিকিৎসা হয়। তাহলে প্রধানমন্ত্রী কেন কানের চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যায়। তাদের দলের সাধারণ সম্পাদক কয়দিন পর পর চেকআপের জন্য সিঙ্গাপুরে যান। আসল কথা হল আমাদের দেশে সব চিকিৎসা সম্ভব নয়। দেশনেত্রীর (খালেদা জিয়ার) চিকিৎসকরা বলেছেন, তার স্বাস্থ্যে বিভিন্ন জটিলতা আছে। তার চিকিৎসা দেশে করা সম্ভব না। তার চিকিৎসা দেশে সম্ভব নয় জানার পরও দেশের বাইরে যেতে দিচ্ছে না তাহলে আপনি চানটা কি? আপনি কি চান তার মৃত্যু হোক ? বাংলাদেশের মানুষ তা চায়না। দেশের মানুষ দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে তাদের মাঝে আবার ফিরে পেতে চায়।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক
অধ্যাপক ডাক্তার ফরহাদ হালিম ডোনার। ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপি সদস্য সচিব আমিনুল হকের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি স্হায়ী কমিটির সদস্য সেলিনা রহমান, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূইয়া, আতাউর রহমান খান,বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক এমপি নাজিমউদ্দীন আলম,কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, কেন্দ্রীয় কমিটি সহ-সেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, শ্রমীকদল কেন্দ্রীয় কমিটি ভারপ্রাপ্ত সাধারণ মোস্তাফিজুর রহমান, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটি সিনিয়র সহসভাপতি মামুন হাসান, যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটি ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিল্টন, সেচ্ছাসেবকদল কেন্দ্রীয় কমিটি সিনিয়র সহ সভাপতি ইয়াসিন আলী, সেচ্ছাসেবকদল কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক রাজিব আহসান,
ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদ ইকবাল খান, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহামুদ জুয়েল,
মহিলাদল কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণত সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, মহিলাদল কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক
হেলেন জেরিন খান, প্রমুখ।

এছাড়াও

সোসাইটি-সমিতির সাথে সম্পর্ক স্থাপন করতে চাই: মেয়র আতিক

মো: সোলায়মান: রাজধানীর গুলশান-২ ডিএনসিসি নগর ভবন হলরুমে ঈদ উপলক্ষ্যে ডিএনসিসি এলাকার বিভিন্ন সোসাইটির দারোয়ানদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *