Thursday , April 25 2024
Breaking News
সিএনজি ফিলিং স্টেশন।ছবি : সংগৃহীত

কর্মসূচি দেবেন মালিকরা

শেষ বার্তা ডেস্ক :

সরকার সিএনজি স্টেশন বন্ধের সময় বাড়াতে চায় বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাসের সরবরাহ কমে যাওয়ায়। স্টেশনগুলো বর্তমানে দৈনিক ৫ ঘণ্টা করে বন্ধ থাকে। সরকার চাইছে, আরও দুই ঘণ্টা বাড়াতে। আর এমনটি করলে দেশব্যাপী কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সিএনজি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা। তারা বলছেন, সিএনজি স্টেশনগুলোতে এখন ঠিকমতো গ্যাসের প্রেশার পায় না। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে ৫ থেকে ৭ ঘণ্টা লোডশেডিং। এসব কারণে এখন ব্যবসায় খারাপ অবস্থা।

সংশ্লিষ্টরা জানান, গত মঙ্গলবার সিএনজি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে এসব বিষয়ে বৈঠক করে পেট্রোবাংলা। এ বৈঠকে সিএনজি স্টেশন পাঁচ ঘণ্টার পরিবর্তে সাত ঘণ্টা বন্ধ রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়। সিএনজি মালিকরা এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। বর্তমানে দেশের সব সিএনজি স্টেশন সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত বন্ধ থাকে।

বৈঠকে পেট্রোবাংলার প্রস্তাবের বিরোধিতা করে সিএনজি মালিকরা বলেন, লোডশেডিংয়ের কারণে সিএনজি স্টেশন দৈনিক চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ রাখতে হচ্ছে, যা ঢাকার বাইরে আরও বেশি সময় বন্ধ থাকে। এ ছাড়া গ্যাসের চাপের স্বল্পতার কারণে গ্যাস রিফিল (সিলিন্ডার ভরাট করা) করতে অনেক সময় লাগে। এর মধ্যে রেশনিং আরও দুই ঘণ্টা বাড়লে ব্যবসা গুটিয়ে নিতে হবে।

সিএনজি অ্যাসোসিয়েশনের শীর্ষ এক নেতা জানান, আমাদের বিরোধিতার পরেও যদি রেশনিংয়ের সময় বাড়ানো হয়, তাহলে কর্মসূচি দেব। কারণ বিদ্যুতের পরিস্থিতি সহনীয় করতে সিএনজি খাতের গ্যাস বিদ্যুতে সরবরাহ করা হবে বলে পেট্রোবাংলা থেকে বলা হচ্ছে। এ অবস্থায় সময় বাড়লে আমরা সারা দেশের সব সিএনজি স্টেশন টানা তিন দিন বন্ধ রাখব। তখন বেরিয়ে আসবে সিএনজি স্টেশনে সরবরাহকৃত গ্যাস বিদ্যুতে সরবরাহ করলে পরিস্থিতি কতটা উন্নতি হয়। তিনি আরও জানান, কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা চলছে। এখনো আমরা চূড়ান্ত করিনি। পেট্রোবাংলার সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করবে সবকিছু।
পেট্রোবাংলার পরিচালক (অপারেশন) মো. কামরুজ্জামান এ প্রসঙ্গে কালবেলাকে বলেন, সিএনজি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। এটা প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। এখনো চূড়ান্ত কিছু হয়নি। দুই ঘণ্টা বেশি বন্ধ বিকেলে, না রাতে থাকবে—সেটা নিয়েও আমরা পর্যালোচনা করছি। পাশাপাশি দুই ঘণ্টা বন্ধ রাখলে বিদ্যুতে গ্যাস সরবরাহ কতটা বাড়বে, সেটাও পর্যালোচনা করা হচ্ছে।
সিএনজি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ফারহান নূর এ প্রসঙ্গে কালবেলাকে বলেন, গত মঙ্গলবার পেট্রোবাংলা আমাদের ডেকেছিল। গ্যাস সংকটে আমাদের সহযোগিতা চায়। এ জন্য সিএনজি স্টেশনের রেশনিং সময় আরও দুই ঘণ্টা বাড়াতে চায়; কিন্তু এখন আমাদের যে পরিস্থিতি তাতে আমরা পেট্রোবাংলার প্রস্তাবে অসম্মতি জানাই।

গত ১ মার্চ থেকে সিএনজি স্টেশনগুলো সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত পাঁচ ঘণ্টা বন্ধ রাখা হয়। এর আগে সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বন্ধ থাকত। জ্বালানি বিভাগের ২০২১-২২ অর্থবছরের বার্ষিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, বর্তমানে দেশে অনুমোদিত সিএনজি স্টেশনের সংখ্যা ৬০৩। একই অর্থবছরে দেশে সিএনজিতে রূপান্তর হওয়া গাড়ির সংখ্যা ৮ হাজার ৭০৫টি। দেশের এখন মোট সিএনজিচালিত গাড়ির সংখ্যা ৫ লাখ ৫ হাজার ৮১৭টি। এর মধ্যে থ্রি-হুইলার অটোরিকশার সংখ্যা ১ লাখ ৯৩ হাজার ২৪২টি। আর একই অর্থবছরে সিএনজি খাতে ২ হাজার ৫৪ মিলিয়ন কিউবিক মিটার গ্যাস সরবরাহ করা হয়।

এছাড়াও

শহরকে বাঁচাতে দখল এবং দূষণ রোধে কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হবে:মেয়র আতিক

মো: সোলায়মান : আমরা কেউ মরণফাঁদ দেখতে চাই না বলেছেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন মেয়র …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *